ইসলামের ইতিহাস ২য় খন্ড

ইসলামের ইতিহাস ২য় খন্ড pdf বই ডাউনলোড। উমাইয়া বংশের শাসনামল। খিলাফতে রাশিদার পর এখন আমরা বনূ উমাইয়ার শাসনকাল সম্পর্কে এই বইয়ে আলোচনা করা হয়েছে। খিলাফতে রাশিদার প্রথম দুইজন খলীফা না উমাইয়া বংশীয় ছিলেন, আর না হাশিম বংশীয়। তাঁদের উভয়ের খিলাফতকাল ছিল খিলাফতে রাশিদার শ্রেষ্ঠতম শাসনকাল। তৃতীয় খলিফা ছিলেন উমাইয়া বংশীয়। এবং চতুর্থ খলিফা হাশিম বংশীয়।

খিলাফতে রাশিদার শেষার্ধে বনূ উমাইয়া ও বনূ হাশিম উভয় গোত্রই খিলাফতের আসনে অধিষ্ঠিত হয়েছিল। প্রথমার্ধের অনুপাতে শেষার্ধকে ‘একটি ব্যর্থতার যুগ’ অ্যাখ্যা দেওয়া যেতে পারে। যদিও তা তৎপরবর্তী শাসনকালের তুলনায় ছিল নিশ্চিতভাবে শ্রেষ্ঠতর।

আরও দেখুনঃ ইসলামের ইতিহাস ১ম খন্ড pdf বই

কেননা ঐ সময়ে সাহাবায়ে কিরাম রাঃ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার অধিকারী ছিলেন। এবং বেশীর ভাগ সাহাবী তখনও জীবিত ছিলেন। শিরকের মূলোৎপাটন এবং তাওহীদ তথা একত্ববাদের প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যেই ইসলামের আবির্ভাব। রাসূলুল্লাহ সাঃ মানুষকে পরিপূর্ণ তাওহীদ এবং সত্যিকার সাফল্যের পথ প্রদর্শন করেছেন।

মানুষের জন্য শিরকের চাইতে ক্ষতিকর এবং তাওহীদের চাইতে মঙ্গলজনক আর কিছুই হতে পারে না। শির্ক প্রকৃতপক্ষে একটি মারাত্মক জুলুম। তাই পবিত্র কুরআনে এটাকে ‘জুলমে আযীম’ (চরম জুলুম) আখ্যা দেওয়া হয়েছে।

আরও দেখুনঃ মুয়াত্তা (ইমাম মালিক) ২য় খন্ড pdf বই 

এর চাইতে বড় জুলুম আর কি হতে পারে? যে, মানুষ তার প্রকৃত মাবূদ বা উপাস্যকে ছেড়ে ঐসব দুর্বল সত্তাকে নিজের মাবূদ বলে গ্রহণ করে! যারা সত্যিকার মাবূদের মাখলুক (সৃষ্ট) ও গোলাম ছাড়া কিছু নয়।

অতএব শুধু ঐ ব্যক্তিই শির্ক করতে পারে, যে ন্যায়বিচার পরিবর্তে জুলুম ও অবিচারকে নিজের আদর্শ হিসাবে গ্রহণ করেছে। যে বস্তুটি তাকে এই জুলুমে লিপ্ত করেছে তা হচ্ছে তার মূর্খতা এবং দুনিয়ার প্রতি তার সীমাহীন আসক্তি।

আরও দেখুনঃ নাঙ্গা তলোয়ার ২য় খন্ড pdf বই

নিচে ইসলামের ইতিহাস ২য় খন্ড বই এর স্ক্রীনশট ও ডাউনলোড লিংক দেওয়া হলোঃ

ইসলামের ইতিহাস ২য় খন্ড pdf বই ডাউনলোড

প্রকাশকঃ ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ
বইয়ের ধরণঃ ইসলামী ইতিহাস
বইয়ের সাইজঃ 39.0 MB
প্রকাশ সালঃ  ২০০৮ ইং
বইয়ের লেখকঃ মাওলানা আকবর শাহ খান নজিবাবাদী
অনুবাদঃ ইসলামিক ফাউন্ডেশন
ডাউনলোড সার্ভার-১ঃ Download Now

ডাউনলোড করতে কোন সমস্যা হলেঃ

Join Our Facebook Group