0
(0)

প্রশান্তচিত্ত মুমিনের ভাবনা pdf বই ডাউনলোড। মানুষের দেহটি আসল মানুষ নয়। দেহ সৃষ্টির বহু আগেই মানুষকে সৃষ্টি করা হয়েছে। কুরআনের ভাষায় যাকে রূহ বলা হয়, সেটাই আসল মানুষ। বাংলাা ভাষায় একে বিবেক বলা যায়। দেহ হলো বস্তুসত্তা-পশুর মতোই এর কোনো নৈতিক চেতনা নেই। ভালো ও মন্দের চেতনাই হলো রূহ। রূহ হলো নৈতিক সত্তা। মানুষ ও পশুর দেহ যেসব উপদানে সৃষ্ট তা সবই বস্তু।

স্বাভাবিক কারণেই দেহ বস্তুজগৎকে ভোগ করতে চায়। খিদা লাগলে খাবার চায়, পিপাসা হলে পানি চায়, গরম লাগলে ঠান্ডা চায়, ঠান্ডার সময় গরম চায়, মিষ্টি আওয়াজ শুনতে চায় ইত্যাদি। দেহের এসব দাবিকে কুরআনে এক শব্দে নাফস বলা হয়েছে। বাংলায় এর নাম প্রবৃত্তি, প্রবণতা, স্পৃহা, আকাঙ্ক্ষা ইত্যাদি।

আরও ইসলামিক বই দেখুনঃ

খিদের সময় দেহ খাবার দাবি করে। যেহেতু দেহের নৈতিক চেতনা নেই, সেহেতু হারাম পথেও পেলেও সে খায়। কিন্তু হারাম খাবার সে যত মজাই করেই খাক, বিবেকের কাছে তা মজা লাগে না। বিবেক দংশন করে। কারণ, এর নৈতিক চেতনা আছে।

রূহের পরিচয় কি? কি ভাবেই রূহ হলো। কোথায় থেকে আসলো ? প্রথম মানুষ আদম আঃ-কে মাটি দিয়ে তৈরি করার পর আল্লাহ তাআলা তারঁ রূহ থেকে আদম আঃ-এর দেহে ফুঁ দিয়ে যে নৈতিক চেতনা দান করেছেন, তা ই হলো আসল মানুষ। আল্লাহ তাআলা বলেন, অর্থাৎ- আমার রূহ থেকে এর মধ্যে ফুঁ দিয়ে দিলাম । (সূরা হিজর :২৯) এ রূহ বস্তু নয়। দেহের টান বস্তুজগতের দিকে। রূহের আকর্ষণ আল্লাহর দিকে। এ আকর্ষণ আছে বলেই কোনো কোনো মানুষ দেহের দাবিকে অগ্রাহ্য করে সন্ন্যাসী হয়ে যায়।

আমি কি তোমার রব নই?

সূরা আরাফের ১৭২ নং আয়াতে ঘোষণা করা হয়েছে, আদমের পৃষ্ঠদেশ থেকে সকল মানুষের রূহকে বের করে তাদেরকে আল্লাহ তাআলা জিজ্ঞেস করলেন, আমি কি তোমাদের রব নই? সবাই জবাব দিল, অবশ্যই আপনি আমাদের রব, আমরা সাক্ষ্য দিলাম। আল্লাহকে রব হিসেবে সাক্ষ্যদাতা রূহই হলো আসল মানুষ। সৃষ্টির দিক দিয়ে সব মানুষের বয়েই এক সমান। দেহের উপর আরোহণ করে মায়ের পেট থেকে বের হওয়ার দিক দিয়ে প্রত্যেক মানুষের বয়সই অপরের থেকে-কম বেশি হয়।

নাফস ও রূহের লড়াই। আমাদের সবারই এ তিক্ত অভিজ্ঞতা আছে যে, দেহ যাকিছু দাবি করে এর মধ্যে নৈতিক বিবেচনায় যদি মন্দ কিছু থাকে তাহলে বিবেক আপত্তি জানায়। ফলে নাফস ও রূহের মধ্যে লড়াই লেগে যায়। নাফস যদি রূহের চেয়ে বেশি সবল হয় নাফসকে দম করতে সক্ষম হয় এবং দেহকে মন্দ কাজ করা থেকে ফিরিয়ে রাখতে পারে। নাফস ও রূহের এ লড়াইয়ের কারণে নাফসের তিন রকম অবস্থা হয়। কুরআন ঐ তিন অবস্থার নাম দেওয়া হয়েছে- নাফসে আম্মারা, নাফসে লাওয়ামা ও নাফসে মুৎমাইন্না ।

নিচে  প্রশান্তচিত্ত মুমিনের ভাবনা  pdf বই এর স্ক্রীনশট ও ডাউনলোড লিংক দেওয়া হলোঃ 

প্রশান্তচিত্ত মুমিনের ভাবনা pdf বই ডাউনলোড

বইয়ের প্রকাশকঃ  কামিয়াব প্রকাশন 
বইয়ের ধরণঃ   দুনিয়াতে মানুষ আসার গঠনা 
বইয়ের সাইজঃ 1.00 MB
প্রকাশ সালঃ   
বইয়ের লেখকঃ   অধ্যাপক গোলাম আযম 
  
ডাউনলোড সার্ভার-১ঃ Download Now

Join Our Facebook Group

যদি ডাউনলোড করতে কোন সমস্যা হয়। আর ওয়েবসাইটটি আপনার উপকারে কাজে আসলে আপনি একটি শেয়ার করে দিন। শেয়ার করুন সওয়াবের আশায়, কারণ আপনি ভালো কাজে এবং ভালো উদ্দেশ্যে শেয়ার করছেন। আর প্রত্যেক ভালো কাজের বিনিময় আল্লাহ আপনাকে উত্তম বদলা দিবেন।

বইটি সম্পর্কে আপনার মূল্যবান রেটিং দিন?

Click on star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this book.

As you found this post is useful...

Follow us on social media!

We are sorry that this book was not useful for you!

Let us improve this post!

Tell us how we can improve our site?