লজ্জাতুন্নেছা তাবিজের কিতাব pdf বই ডাউনলোড। আমাদের দেশ সহ সারা বিশ্বে নানা ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতি চালু আছে। সর্বত্রই হাকীম, ডাক্তার, কবিরাজ ও রূহানী বা আত্মিক চিকিৎসকের অভাব নেই। প্রত্যেকেই নিজস্ব শাস্ত্রের বিধান মতে চিকিৎসা করেন।

চিকিৎসা পদ্ধতি যাই হোক, এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে জরুরী কথা হলো – চিকিৎসককে সুবিজ্ঞ ও বহুদর্শী হতে হবে। সর্বপ্রকার চিকিৎসা পদ্ধতিতেই নিম্নবর্ণিত বিষয়গুলোর প্রতি লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন।

১. রোগীদের জন্য প্রথম উপদেশ হলো কুপথ্য হতে বিরত থাকতে হবে।
২. সর্বপ্রথম সংযম ও যথাযথ নিয়ম পালন দ্বারা রোগ প্রতিকারের চেষ্টা করবে।
৩. এতে ফল না দর্শিলে বনজ ও ভেষজ ঔষুধ এবং দেশীয় বনজ পদার্থে গঠিত ঔষুধ দ্বারা চিকিৎসা করাবে।
৪. এতেও রোগারোগ্য না হলেও খনিজ ও সামুদ্রিক পদার্থে প্রস্তুত ঔষুধ প্রয়োগ করে দেখবে।
৫. এবং এতেও বিফল হলে আধুনিক বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে প্রস্তুত ঔষুধ দ্বারা চিকিৎসার জন্য বিজ্ঞ ও বিচক্ষণ ডাক্তারের আশ্রয় গ্রহণ করবে।

আরও দেখুনঃ যাদুকর ও জ্যোতিষীর গলায় তরবারি pdf বই

অবশ্য আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতির চিকিৎসকরা এক মহা ভুল করে থাকেন। তা হলো তারা সর্বপ্রকার রোগকে জড় ব্যাধি ধরে নিয়ে চিকিৎসা করেন্ অথচ সব ব্যাধিই জড় ব্যাধি নয়। দীর্ঘ অভিজ্ঞতায় উপরি ব্যাধির অস্তিত্ব সপ্রমাণিত। কিন্তু আধুনিক চিকিৎসকগণ উপরি ব্যাধির অস্তিত্ব স্বীকার করার মত উদারত প্রদর্শনে নারাজ।

ফলে জড় ব্যাধি হলে তাদের চিকিৎসা অনেক ক্ষেত্রে ভাল ফল দিলেও উপরি ব্যাধির ক্ষেত্রে তা সাফল্যের মুখ দেখে না। বিপরীতে গাঁও গ্রামে এক শ্রেণীর মূর্খ ফকীর এবং ঝাড়ফুঁকদাতা চিকিৎসক আছে, তারা লোকের যে কোন রোগকে উপরি ব্যাধি সাব্যস্ত করে বাজে মন্ত্রতন্ত্র প্রভৃতি দ্বারা আরোগ্য করার চেষ্টা চালায়। অথচ তাতে কোন ফলই পাওয়া যায় না।

প্রকৃতপক্ষে সব ব্যাধিই জড় ব্যাধি নয়, আবার সব ব্যাধিই উপরি ব্যাধিও নয়। এ জন্য সর্বপ্রথম উচিত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে কোন শ্রেণীর রোগ তা নির্ণয় করা। তারপর যেখানে যেরূপ রোগ দেখা যায় সেখানে সেরূপ চিকিৎসার ব্যবস্থা করা।

নিচে লজ্জাতুন্নেছা তাবিজের কিতাব pdf বই এর স্ক্রীনশট ও ডাউনলোড লিংক দেওয়া হলোঃ 

লজ্জাতুন্নেছা তাবিজের কিতাব pdf বই ডাউনলোড

প্রকাশকঃ দেওয়ান বুক ডিপো
বইয়ের ধরণঃ কবিরাজি বই
বইয়ের সাইজঃ 62.5 MB
প্রকাশ সালঃ ২০০০ ইং
বইয়ের লেখকঃ হাফেজ মাওলান মুহাম্মদ আব্দুল আজিজ
অনুবাদঃ
ডাউনলোড সার্ভার-১ঃ Download Now

ডাউনলোড করতে কোন সমস্যা হলেঃ

Join Our Facebook Group